GARNET STONE (গোমেদ পাথর)

জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে রাহু গ্রহের রত্ন হল গোমেদ। হালকা হলুদ থেকে গাঢ় বাদামি রঙের হয় এই পাথর। অনেকটা মধুর মতো রং হয় গোমেদ পাথরের। গোমেদ আসলে গারনেটের একটি রূপ। রাহু যদিও সৌর জগতের কোনও অংশ নয়, তবু বৈদিক জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে রাহু হল একটি ছায়া গ্রহ। জ্যোতিষশাস্ত্রে রাহুর প্রচুর গুরুত্ব রয়েছে। রাহু যাদের নিয়ন্ত্রক, তাদের প্রকৃতির মধ্যে প্রচুর গোপনীয়তা থাকে। রাহুর কুদৃষ্টির ফলে কারোর মানসিক শান্তি নষ্ট হতে পারে।

রাহুর প্রভাব কাটাতে গোমেদ ধারণ করার পরামর্শ দেন জ্যোতিষবিদরা। রাাহুর প্রভাবে মানুষের মনে নানা ধরনের দ্বিধা দেখা দিতে পারে। এমনকি রাহুর কুদৃষ্টির কারণে মানুষের মনে শয়তানি বুদ্ধির উদ্রেক হতে পারে। রাহুকে নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা রয়েছে গোমেদ পাথরের। রাহুর কু-দশা কাটাতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে গোমেদ। রাহুর দশা যাদের চলে, তাদের মনে দ্বিধা দূর করার জন্য গোমেদ ধারণ করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

করোর জন্মছকে রাহু দুর্বল রাহুর পজিটিভ এনার্জির প্রভাব ওই ব্যক্তির ওপর পড়বে না। সেক্ষেত্রে তাঁকে গোমেদ ধারণ করতে বলা হয়। রাহু দুর্বল থাকলে জীবনে বারবার ব্যর্থতা, শারীরিক অসুস্থতা এবং আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হতে পারে। এই পরিস্থিতি থেকে ফিরিয়ে আনতে পারে গোমেদ। এছাড়া গোমেদ শত্র‌ুনাশ করে এবং মন থেকে ভয় দূর করতে সাহায্য করে। গোমেদ ধারণ করলে সেই ব্যক্তির ওপর কোনও কালা জাদু বা ব্ল্যাক ম্যাজিক কাজ করতে পারে না বলেও মনে করা হয়।

তবে গোমেদ ধারণ করার আগে অবশ্যই কোনও জ্যোতিষবিদের পরামর্শ নিয়ে নেবেন। আপনার সত্যিই গোমেদ ধারণ করার প্রয়োজনীয়তা আছে কিনা, তা দেখে নিয়ে তবেই আঙুলের আংটি বা গলায় হারের লকেট করে গোমেদ পরতে পারেন। গোমেদ রূপো দিয়ে বাঁধিয়ে নেওয়াই ভালো। গোমেদ ধারণ করলে রাহুল পজিটিভ এনার্জি পাওয়া যায়। ফলে রাহু দুর্বল থাকলে তার নেগেটিভ এনার্জি ওই ব্যক্তির ক্ষতি করতে পারবে না। ব্যবসা বা রাজনীতির সঙ্গে যারা যুক্ত তাঁদের জন্য গোমেদ বেশ উপযোগী।

Leave A Comment

0
    0
    Your Cart
    Your cart is emptyReturn to Shop